৭২ তারপর ১৯৯৭-২০০১ এবং বর্তমান- ইতিহাস থেকে কি কোন শিক্ষা নেবেন না? @প্রধানমন্ত্রী

লোকে বলে আওয়ামী সরকার আসলে নাকি দেশে আকাল পড়ে। খুন, ধর্ষণ, চাঁদাবাজী, সন্ত্রাস, টেন্ডারবাজীসহ হেন অপকর্ম নেই যা বিস্তার লাভ করে না। স্বাধীনতার পর পর বাবা সেজে মুজিব তেমন পরিস্থিতির উদ্বোধন করে যান। তার সময়ে ভয়াবহ মন্বন্তরের কথা এ দেশবাসী কোনদিন ভুলবেনা। যদিও এর সব দায় মুজিব স্বাধীনতার যুদ্ধের ঘাড়ে চাপিয়ে দিয়ে নিজেকে মুক্ত রাখতে চেষ্টা করেছিল এবং তার অনুসারীরা আজো করে যাচ্ছে। এছাড়াও তৎকালে মানুষের বাক স্বাধীনতাকে রুদ্ধ করে দেয়া হয়েছিল। গণমানুষের কথা বলার সকল মাধ্যমকে বন্ধ করে দিয়ে শুধুমাত্র মুজিব তার নিজ কণ্ঠকে উচ্চকিত করে রেখেছিল। যার পরিণাম দিতে হয়েছিল জীবন দিয়ে।

তারপর কেটে গেল বহুকাল। রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যকার ভুলবুঝাবুঝির পরিণামে মুজিব কন্যা হাসিনা ক্ষমতা দখল করে ৯৭-এ। গতানুগতিক ধারায় বাবার রক্ত পুরোপুরি ধারণ করেছেন মুজিব কন্যা হাসিনা। রাষ্ট্রপরিচালনার অসামান্য অযোগ্যতার ফলে এক সেশনেই দেশের মানুষের নাভিশ্বাস তুলে ছাড়লো। ২০০১ সালে নির্বাচন প্রাক্কালে দেশবাসীর মুখে মুখে একটি মাত্র দাবী ঘুরপাক খাচ্ছিল- এ জালেমের হাত থেকে মুক্তি চাই, তা যেভাবেই হোক। সর্বস্তরের মানুষের স্বতঃস্ফূর্ত ভোট যুদ্ধের ফলাফলে পতন ঘটে জালিম সরকারের। মানুষ শোকরিয়া আদায় করল বিধাতার।

এরপর শুরু হয় ষড়যন্ত্রের যুগ যার ফলাফলের যুগ অতিবাহিত করছে বাংলাদেশ। ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে সৃষ্টি করা হয় নানা প্রকার জাতীয় সন্ত্রাস, দাঙ্গা, হাঙ্গামার। তত্ত্বাবধায়কের নামে সেনা সহযোগিতায় দুঃশাসন চালানো হয়। তারপর ইলেকশন ইঞ্জিনিয়ারিং-এর মাধ্যমে আবারো ঝেঁকে বসে হাসিনা এদেশবাসীর ঘাড়ে। তবে এবার আর একা নয়, বামপন্থীদের বেশ ক'টি গ্রুপ (যাদের কোন জনভিত্তি নেই কোনকালে ছিলও না)। এবারে তাদের শিকড় প্রোত্থিত দিল্লি, ওয়াশিংটন, লন্ডনের মত ষড়যন্ত্রের জন্য উর্বর ভূমিগুলোতে। যার পরিণাম প্রতিদিনের মত কিছু কিছু দেখুন নিচে-

* ১৯৯৭-২০০১ পর্যন্ত ধর্ষণের সরকার বলে অভিহিত সরকার আবারো ফিরে আসাতে দেশের ধর্ষণ রেকর্ড এবার আরো ভয়াবহ! ৩/৫ বছরের শিশু ধর্ষণের ঘটনা ঘটছে এখন আওয়ামীলীগের এই সোনালী যুগে। কি জানি হয়ত সোনার ছেলেদের কেউ হবেন(!)

http://www.amadershomoy.com/content/2010/04/12/news0336.htm

* ইচ্ছের স্বাধীনতা খর্ব করার নানা পদক্ষেপের মধ্যে এটিও একটি। হতে পারে কেউ ইসলামী কিংবা জাতীয়তাবাদী মতাদর্শ ত্যাগ করে ধর্মনিরপেক্ষতাবাদে যোগ দিতে চায়। তাকে এ অধিকার থেকে বঞ্চিত করতে চায় আওয়ামী লীগ নানা অজুহাতে।

http://dailynayadiganta.com/2010/04/12/fullnews.asp?News_ID=205710&sec=4

* সোনার ছেলেদের মুখে মুখে এখন শোনা যাচ্ছে- 'এর চাইতে ভাল সময় আর কবে এসেছিল'! অর্থাৎ সোনার ছেলেদের এখন চলছে সোনালী যুগ। আর তাই এর সদ্বেবহার এখন না করলে আর কবে করবে?

http://www.amadershomoy.com/content/2010/04/12/news0291.htm

* ইভটিজিং-এর জন্য প্রাণ দিয়েছে এযাবৎ বেশ কিছু কিশোর প্রাণ! কিন্তু তাতে আওয়ামী সরকারে কি আসে যায়? তারা তো তাই চাচ্ছে। কেননা আগে তো যৌন বিষয়ক কথাবার্তা বলতেও লজ্জা পেত কিশোর-কিশোরীরা আর এখন রীতিমত পাড়ায় মহল্লায় তাদেরকে প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। যার প্র্যাকটিস হয়ত তারা করে বসবে অপ্রাপ্ত বয়সেই। যে প্র্যাকটিসের জন্য কারো সাথে ভাব জমাতে পারবে না সে হয়ত বেছে নেবে ৩ বছরের শিশু থেকে ৮০ বছরের বৃদ্ধার উপর নির্মমভাবে ঝাঁপিয়ে পড়াকে। শুধু কি এই? সমকামীতার ব্যাপারেও আওয়ামী লীগ তাদের সোনালী যুগে সোনার ছেলেদের উদ্ভুদ্ধ করার উদ্যোগ নিয়েছে ইতোমধ্যে!

http://dailynayadiganta.com/2010/04/12/fullnews.asp?News_ID=205678&sec=1

* বিচারক কর্তৃক হুমকি বোধ হয় আওয়ামী সোনালী যুগেই সম্ভব!

http://www.amadershomoy.com/content/2010/04/12/news0289.htm

http://dailynayadiganta.com/2010/04/12/fullnews.asp?News_ID=205662&sec=1

* মনে রাখুন হাসিনা! আপনার বাবাকে রক্ষী বাহিনী রক্ষা করতে পারেনি। বাকশাল কোন প্রকার প্রটেকশন দিতে পারেনি। ইতিহাসের মার বড়ই নির্মম!

http://dailynayadiganta.com/2010/04/12/fullnews.asp?News_ID=205684&sec=3

পাঠক! একদিনের দুটি পত্রিকার কয়েকটি খবরের চিত্র এই। বিগত বহুদিন চলে গেছে যা ছিল আরো ভয়াবহ! আগমনী দিনগুলো কি নিয়ে আসে সে আশংকায় ভয়ে কাঁপছে এদেশের শান্তিপ্রিয় মানুষেরা এখন।

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 3.5 (2টি রেটিং)

দেশের ব্যাপারে দারুন দুঃশ্চিন্তায় পড়ে আছি। উত্তরাধিকারীদের কোথায় রেখে যাব? কোথায় তাদের নিরাপত্তা!

-

দৃষ্টি আমার অপার সৃষ্টি ওগো.... ! @ www.fazleelahi.com

সময়কে নিজেদের আয়াত্বে আনার জন্য প্রয়োজন জনগণের সিদ্ধান্ত। জনগণ চাইলে তাদের জন্য ভাল কিছু আদায়ের লক্ষ্যে কোমর বেঁধে নামবে। আর না চাইলে যেমন আছে তেমনি থাকবে কিংবা আরো পতন সহ্য করতে হবে।

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 3.5 (2টি রেটিং)