ইসলামে মানত

‘মানত’ এর রয়েছে প্রকারভেদ। ক্ষেত্র ও বিষয়ভেদে কিছু মানত জায়েয, যেমন কেউ তার অতীত জীবন লিপির কথা স্মরণ করে অনুতপ্ত হলো এবং মানত করলো যে, সে সুস্থ হয়ে একমাস রোজা রাখবে বা একশো ওয়াক্ত নফল সালাত আদায় করবে বা একশো মিসকীনকে খাবার খাওয়াবে ইত্যাদি।

আবার কিছু মানত সবতোভাবে হারাম। যেমন কেউ মানত করলো: 

‘আল্লাহ যদি আমার এ মনোবাঞ্চাটি পুর্ণ করেন তাহলে আমি এতো টাকা দান করবো’। ‘আল্লাহ যদি আমাকে এ বিপদ থেকে উদ্ধার করেন, তাহলে আমি এ কাজগুলো করবো’। ‘আল্লাহ যদি আমাকে একটি পুত্র সন্তান দেন তাহলে আমি শাহজালাল এর মাযারে একটি ছাগল দেবো’ (এ ধরণের মানত তো বড়ো শিরক)। ইত্যাদি ইত্যাদি।

অর্থাৎ আল্লাহর প্রতি শর্তারোপ করা যে, তিনি যদি আমার এ কাজটি করে দেন, তাহলে আমি এটা করবো, ওটা করবো। নচেৎ নয়।

যাহোক, মানত সম্পর্কে ফিকাহ শাস্ত্রের জটিল আলোচনা পরিহার করে আমি এখানে এ বিষয়ে রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর বক্তব্য উপস্থাপন করাকেই বেশ প্রণিধানযোগ্য মনে করছি:

“একবার রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মানত মানতে নিষেধ করতে লাগলেন এভাবে: মানত কোনো কিছু প্রতিরোধ করতে পারেনা, তবে এর মাধ্যমে কৃপণ ব্যক্তির অর্থ সম্পদ থেকে কিছু খরচ করানো হয়”। (মুসলিম ৪৩২৫)

“মানত কোনো কাজকে এগিয়ে আনতে কিংবা আশু সংঘটিতব্য কোনো কাজকে পিছিয়ে দিতে পারেনা। তবে এভাবে কৃপণ ব্যক্তির অর্থ সম্পদ খরচ করানো হয়”। (বুখারী, মুসলিম। বর্ণনাকারী: আবু হুরাইরা রাদিয়াল্লাহু আনহু) 

“এভাবে কোন উপকার বা কল্যাণ হয়না। তবে বখিল কর্তৃক তার অর্থসম্পদ থেকে কিছু খরচ করানো হয়”। (মুসলিম ৪৩৩১)

‘আর একবার রাসুল রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম খুতবা পেশের সময়  দেখলেন: এক ব্যক্তি রোদে দাড়িয়ে আছে। তিনি জিজ্ঞেস করলেন, লোকটি কে, কেনইবা রোদে দাড়িয়ে আছে? বলা হল: তার নাম আবু ইসরাঈল। সে মানত করেছে: রোদে দাড়িয়ে থাকবে, বসবেনা, ছায়া গ্রহণ করবেনা, কারো সাথে কথা বলবেনা এবং রোযা রাখবে। শুনে রাসুল রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন: তাকে বলো: সে কথা বলুক, ছায়াতে আশ্রয় নিক, এবং বসুক তবে রোযা যেন পালন করে। (বুখারী, আবু দাউদ, ইবনু মাজাহ, মুয়াত্তা। বর্ণনাকারী: আবদুল্লাহ ইবনু আব্বাস (রাদিয়াল্লাহু আনহু)

আর একটি হাদিসে বর্ণিত হয়েছে: একবার উকবা ইবনু আমের আল জুহানি (রা) রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে এসে বললেন: আমার বোন খালি পায়ে হেটে হাজ করার মানত করেছে। সে আরও মানত করেছে, হাজের এ সফরে সে মাথায়ও কাপড় দেবেনা। শুনে রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন: তার এ মানতে আল্লাহর কোনো প্রয়োজন নেই। তাকে বলো: সে যেন বাহনে সওয়ার হয়ে হাজে যায় এবং মাথায় যেন কাপড় দেয়। (মুসলিম, আবু দাউদ)। 

বি: দ্র: কিছু মানত জায়েয হলেও আল্লাহর শা’ন এবং তার দ্বীনের মান-মযাদার সাথে সংগতিপুর্ণ নয় বিধায় ইসলাম তা নিরুৎসাহিত করে।

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 1 (টি রেটিং)

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 1 (টি রেটিং)