রাসূল (সঃ)-র মানুষ হওয়া

بسم ا لله ا لر حمن ا لر حیم

হয়রত নূহ (আঃ) যখন তার জাতির কাছে আল্লাহর বাণী নিয়ে এলেন, তখন তার জাতির লোকেরা বল্লো-

مَا هَذَا إِلَّا بَشَرٌ مِّثْلُكُمْ يُرِيدُ أَن يَتَفَضَّلَ عَلَيْكُمْ وَلَوْ شَاء اللَّهُ لَأَنزَلَ مَلَائِكَةً مَّا سَمِعْنَا بِهَذَا فِي آبَائِنَا الْأَوَّلِينَ

“-এ ব্যক্তি তোমাদেরই মতো একজন মানুষ ব্যতীত আর কিছু নয় । সে তোমাদের উপর মর্য়দা লাভ করতে চায় । অথচ খোদা যদি চাইতেন ত ফেরেশতাদেরকে পাঠাতেন । এ উদ্ভট কথা ত আমরা আমাদের বাপদাদার মুখে কখনো শুনিনি (যে পয়গম্বর কখনো মানষ হয়)”। (সূরা মুমেনুনঃ ২৩/২৪)

যখন হয়রত হুদ (আঃ)-কে তার জাতির কছে হেদায়তের জন্য পাঠানো হল, তখন তার জাতির লোকেরা তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করলেন-

مَا هَذَا إِلَّا بَشَرٌ مِّثْلُكُمْ يَأْكُلُ مِمَّا تَأْكُلُونَ مِنْهُ وَيَشْرَبُ مِمَّا تَشْرَبُون–َ

وَلَئِنْ أَطَعْتُم بَشَراً مِثْلَكُمْ إِنَّكُمْ إِذاً لَّخَاسِرُونَ

“-এ ব্যক্তি তোমাদেরই মতো একজন মানুষ ছাড়া  আর কিছু নয় । তোমরা যা খাও, সে তাই খায় । তোমরা যা পান কর, সেও তাই পান করে । তোমরা যদি তোমাদেরই মতন একজন মানুষের আনুগত্য কর তাহলে ভয়ানক ক্ষতির সম্মুখীন হবে”।(সূরা মুমেনুনঃ ২৩/৩৩-৩৪)

হয়রত মূসা (আঃ) এবং হারুন (আঃ) যখন আল্লাহর বণী নিয়ে ফেরাউনএর কাছে পৌছেন, তখন ফেরাউন বল্লো-

أَنُؤْمِنُ لِبَشَرَيْنِ مِثْلِنَا

“আমরা কি আমাদেরই মতো দু’জন মানুষের উপর ঈমান আনব?” (সূরা মুমেনুনঃ ২৩/৪৭)

মানুষ এটা বুঝতেই পারলনা যে, একজন মানুষ কি করে আল্লাহর রাসূল হতে পারে-

مَالِ هَذَا الرَّسُولِ يَأْكُلُ الطَّعَامَ وَيَمْشِي فِي الْأَسْوَاقِ لَوْلَا أُنزِلَ إِلَيْهِ مَلَكٌ فَيَكُونَ مَعَهُ نَذِيراً {7} أَوْ يُلْقَى إِلَيْهِ كَنزٌ أَوْ تَكُونُ لَهُ جَنَّةٌ يَأْكُلُ مِنْهَا

“-এ আবার কেমন রাসূল যে আহার করে এবং হাট-বাজারে চলাফেরা করে? তার সাথে একজন ফেরেশতা নেমে এলো না কেন যে তার সাথে থেকে মানুষকে সতর্ক করে দিতে? অথবা- নিদেনপক্ষে তার জন্যে কোন রত্নভান্ডার নামিয়ে দেয়া হতো অথবা তার সাথে কোন ফলের বাগান থাকতো যার থেকে সে খেতে পারতো” (সূরা ফুরকানঃ ২৫/৭-৮)

যেহেতু ভ্রন্তধরণাই রেসালত মেনে নেয়ার ব্যাপরে সবচেয় বড় প্রতিবন্ধক ছিল, সেজন্যে কুর’আন মজিদ দ্ব্যর্থহীন ভাষায় খন্ডন করা হয়েছে । অতঃপর যুক্তিসহ বলা হয়েছে যে, মানুষের পথপ্রদর্শনের- মানুষই সবচেয়ে বেশি উপযোগী হতে পারে ।

قُل لَّوْ كَانَ فِي الأَرْضِ مَلآئِكَةٌ يَمْشُونَ مُطْمَئِنِّينَ لَنَزَّلْنَا عَلَيْهِم مِّنَ السَّمَاءِ مَلَكاً رَّسُولاً

“যদি পৃথিবীতে ফেরেশতারা নিশ্চিন্তে (স্বাভাবিক ভাবে) চলাফেরা করতে পারতো, তাহলে আমরাও তাদের (পৃথিবীবাসীদের) উপর আসমানের কোন ফেরেশতাকে রসূল করে নাযিল করতাম” (সূরা বনী ইসরাইলঃ ১৭/৯৫)

অতঃপর আল্লাতায়লা বলেন, ইতিপূর্বে যতো নবী রাসূল আগমন করেছেন, তারা ঠিক তেমনিই মানুষ ছিলেন । যেমন মুহাম্মদ (সঃ) মানুষ ।

وَمَا أَرْسَلْنَا قَبْلَكَ إِلاَّ رِجَالاً نُّوحِي إِلَيْهِمْ فَاسْأَلُواْ أَهْلَ الذِّكْرِ إِن كُنتُمْ لاَ تَعْلَمُونَ {7} وَمَا جَعَلْنَاهُمْ جَسَداً لَّا يَأْكُلُونَ الطَّعَامَ وَمَا كَانُوا خَالِدِينَ

“-তোমার পূর্বে আমরা যেসব রসূল পাঠিয়েছিলাম তারাও মানুষই ছিল যাদের উপর আমরা অহী নাযিল করতাম । তোমরা না জানলে জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করে দেখ ।আমরা ওসব নবীকে এমন দেহ দান করিনি যে তারা আহার করতোনা, আর না তারা অমর ছিল”।( সূরা আম্বীয়াঃ ২১/৭-৮)

وَما أَرْسَلْنَا قَبْلَكَ مِنَ الْمُرْسَلِينَ إِلَّا إِنَّهُمْ لَيَأْكُلُونَ الطَّعَامَ وَيَمْشُونَ فِي الْأَسْوَاقِ

“এবং আমরা তোমার পূর্বে যতো নবী পাঠিয়েছি তারা সকলে আহার করত এবং বাজারে চলাফেরা করতো”।(সূরা ফুরকানঃ ২৫/২০)

وَلَقَدْ أَرْسَلْنَا رُسُلاً مِّن قَبْلِكَ وَجَعَلْنَا لَهُمْ أَزْوَاجاً وَذُرِّيَّةً

“-এবং তোমার পূর্বে আমরা বহু রসূল পাঠিয়েছিলাম এবং তাদের জন্যে বিবিও পয়দা করেছিলাম এবং সন্তানসন্ততিও দিয়েছিলাম” (সূরা রা’দঃ ১৩/৩৮)

অতঃপর আল্লাহতায়ালা রাসূল (সঃ)-কে আদেশ করেণ, “তুমি তোমার মানুষ হওয়ার কথা স্পষ্ট ঘোষণা করে দাও যাতে করে তোমার পরে লোকে তোমাকে খোদায়ীর গুণে গুণান্বিত না করে, যেমনি ভাবে তোমার পূর্ববর্তী নবীদের করা হয়েছে ।

قُلْ إِنَّمَا أَنَا بَشَرٌ مِّثْلُكُمْ يُوحَى إِلَيَّ أَنَّمَا إِلَهُكُمْ إِلَهٌ وَاحِدٌ

“-হে নবী ! বলে দাও- আমি তোমাদের মতো নিছক একজন মানুষ । আমার উপর অহী নাযিল করা হয় যে, তোমাদের খোদা ত একজনই” ( সূরা কাহাফঃ ১৮/১১০ এবং সূরা হা-মীম সাজদাঃ ৪১/৬)

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (5টি রেটিং)

মাশাআল্লাহ্। দারুন পোষ্ট।

-

আমার প্রিয় একটি ওয়েবসাইট: www.islam.net.bd

ধন্যবাদ আপনাকে ।

ভাল লাগা হৃদয় ছুঁয়ে গেল। লেখককে চালিয়ে যাবার জন্য অনুরোধ থাকলো।

চেষ্টা করব নিয়মিত লিখার জন্য । ধন্যবাদ আপনাকে ।

ভালো লাগলো

পড়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ ।

অনেক ভাল লিখেছেন। চালিয়ে যান। আল্লাহ সাহায্য করুক! 

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (5টি রেটিং)