অর্থনীতির তিন শক্তি কৃষক, শ্রমিক আর প্রবাসী

 

 

আমাদের কৃষক ম্যাজিক করেছে। ৭ কোটি মানুষের দু'বেলা অন্নের সংস্থান ছিলনা। এখন ১৬ কোটি মানুষ, জমি কমেছে। আমরা খাদ্য-উদ্বৃত্ত দেশ। কম জমিতে অধিক
ফলন - ম্যাজিকই বটে। যে দেশে প্রতি বছর প্রাকৃতিক দূর্যোগ লেগেই আছে, এক বছর বন্যা, অন্য বছর খরা, তো পরের বছর অতিবৃষ্টি। চরম প্রতিকুল এই দেশে চাষী
ভাইয়েরা আজও খাবারের যোগান দিয়ে চলেছে। আমি তো বলি শিক্ষিত মানুষের চেয়ে ঢের
মর্যাদাবান আমাদের কৃষক। "চুরি কে করে? আমার কৃষক, শ্রমিক, মজুর চুরি করে? না, আমার সাধারন মানুষ চুরি করেনা।
চুরি করে একশ্রেনীর শিক্ষিত মানুষ"- বঙ্গবন্ধু অত্যন্ত দুঃখে এ কথা বলেছিলেন।
তাঁর আদর্শের বুলি কপচাই,
তবে চর্চা করিনা। দু'পাতা লেখাপড়া শিখেই ভাবি "চুরি করা আমার right, যেহেতু আমি শিক্ষিত"! ফুটানি করি কৃষকের অর্জন
নিয়ে, শ্রমিকের শ্রম-ঘামে, প্রবাসীর
রেমিটেন্স দিয়ে। একটি সমীক্ষা বলছে, গার্মেন্টস শিল্পেই
শ্রমিকের সংখ্যা ৭০ লক্ষ। অন্যান্য সেক্টর মিলিয়ে এ সংখ্যা বিশাল। কেউ বলতে পারেন
যে শ্রমিকেরা দুর্নীতি করে,
চুরি করে? নির্ধারিত সময়ের পরে শিল্পের দরকারে অতিরিক্ত
পরিশ্রম করে। গার্মেন্টস প্রধান বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনকারী খাত। পৃথিবীর শীর্ষ ১০টি
পোশাক কারখানার ১ম ও ২য়টি সহ ৭টি বাংলাদেশী। এই গৌরব মালিকসহ শ্রমিকের যারা অর্থনীতির
রক্তপ্রবাহ চাঙ্গা রেখেছে। আমরা ভাগ্যবান, বঙ্গবন্ধুর মতো একজন
মানুষের জন্ম এই ভূখন্ডে হয়েছিল। যাঁর সীমাহীন ত্যাগে আজ স্বাধীন দেশের নাগরিক।
একজন মানুষ এক জীবনে কী করতে পারেন? আমাদেরকে আলাদা একটি
জাতির মর্যাদায় মর্যাদাবান করে গেছেন। একটি দেশ, পতাকা, পাসপোর্ট দিয়ে গেছেন। এই পাসপোর্টে লক্ষ লক্ষ বাঙালী
গর্বিত নাগরিকের মর্যাদায় চষে বেড়ায় পৃথিবীর বড় বড় শহর-নগর। তাদের রেমিটেন্সে
স্ফীত হচ্ছে ব্যাংক রিজার্ভ,
তাজা হচ্ছে অর্থনীতির
শরীর-স্বাস্থ্য।

 


 

আপনার রেটিং: None

Rate This

আপনার রেটিং: None