বিরোধীদের ‘অনুশোচনা দিবস’ পালন করা উচিত

বিএনপির আন্দোলন
ভুলের চোরাবালিতে আটকে গেছে। আওয়ামী লীগের জন্য বিএনপি এখন আর কোনো চ্যালেঞ্জ
নয়।

জানুয়ারির নির্বাচনে অংশ না নিয়ে দলটি ভুল করেছে। এ জন্য ৫ জানুয়ারি
গণতন্ত্র হত্যা দিবস নয়,
তাদের ‘অনুশোচনা’ দিবস পালন
করা উচিত।
সবার
সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ সংগ্রাম গড়ে তুলতে হবে। আজ যারা বাংলাদেশকে
পাকিস্তান বানাতে চায়,
তারা বোকার স্বর্গে বাস করছে। বাংলাদেশ কখনো
পাকিস্তানের মতো বিপজ্জনক রাষ্ট্রের তকমা গ্রহণ করবে না। ৫ জানুয়ারির সংসদ
নির্বাচনের দুই বছরের মাথায় এসে দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের অনেকে মনে করছেন, বিএনপির
ওই নির্বাচন বর্জন করা ঠিক হয়নি। নির্বাচনে অংশ নিলে বিএনপি এখন যে দুর্দশায় পড়েছে, পরিস্থিতি
এতটা খারাপ হতো না। সদ্য সমাপ্ত পৌরসভা নির্বাচন সে উপলব্ধিকে আরও
শক্ত ভিত্তি দিয়েছে। আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকার না করলেও তারা মনে করছেন
৫ জানুয়ারির নির্বাচনে না যাওয়া বিএনপির ভুল ছিল। বিএনপি যদি নির্বাচনে
যেত, তাহলে হয়তো পরিস্থিতি ভিন্ন হতো। আওয়ামী লীগের
নেতা-কর্মীরা সে সময় নৈতিক ও মানসিকভাবে দুর্বল ছিলেন। বিএনপি যদি নির্বাচনের
ঘোষণা দিয়ে নেতা-কর্মীদের মাঠে রাখত, তাহলে আওয়ামী লীগের পক্ষে মাঠ দখলে
রাখা হয়তো দুরূহ হতো। নির্বাচনে হারলেও কিছু আসন বিএনপির থাকত। অন্তত প্রধান
বিরোধী দল থাকত বিএনপি। এতে রাজপথের পাশাপাশি সংসদসহ বিভিন্ন জায়গায় কথা
বলার সুযোগ থাকত।
কূটনীতিকদের
প্রশ্নের মুখেও পড়তে হতো না। তাই ৫ জানুয়ারি বিএনপির ‘অনুশোচনা
দিবস’ পালন করা উচিত।

আপনার রেটিং: None

Rate This

আপনার রেটিং: None