বাতাসে বারুদের গন্ধ

গত ২৮.০২.২০১৩ খ্রিঃ তারিখটি বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসে একটি কালো দিবস হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবে।কারণ এদিনে মাওলানা দেলাওয়ার হোসেন সাঈদীর বিরুদ্ধে দেয়া রায়ের প্রতিক্রিয়ায় দেশব্যাপী জামায়াত শিবির নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ শুরু করলে,পুলিশের সাথে সংঘর্ষে প্রায় অর্ধ শতাধিক লোক নিহত হয়।স্বাধীন বাংলাদেশে এ রকম নজির আর আছে বলে জানা নেই।
মিছিল সমাবেশ করা গণতান্ত্রিক অধিকার।যেমন করছে শাহবাগে অবস্থানকারিরা।দেশের বড় দুটি হাসপাতালের কাছে এমন প্রতিবন্ধকতা সত্ত্বেও পুলিশতো সেখানে গুলি চালায়না।কারো 'ফাঁসি চাই' শ্লোগান যদি দোষের না হয়,তবেতো 'মুক্তি চাই' শ্লোগান দেয়াও দোষের হতে পারেনা।সাঈদীর মুক্তির দাবিতে যারা আন্দোলন করছে তারাওতো এদেশেরই মানুষ।তাহলে তাদের প্রতি কেন এ আচরণ?
ইতোমধ্যেই বিএনপি এ জঘন্য হত্যাকান্ডকে 'নৃশংসতম গণহত্যা' বলে আখ্যায়িত করেছে।গণহত্যার বিচার করতে গিয়ে যদি আবারো গণহত্যার আশ্রয় নেয়া হয় তাহলে সেটি কি সুবিচার করা হলো?
দেশে একটি নির্বাচিত সরকার আছে।এ সরকারের কাছে মানুষের চাওয়া-সুশাসন,দুর্নীতিমুক্ত প্রশাসন,সন্ত্রাস ও চাদাবাজি মুক্ত পরিবেশ ইত্যাদি।কিন্তু সরকার এসব বিষয়ে কি করছে,সেদিকে না গিয়েও শুধু বলব-বাংলাদেশের আকাশে আজ বিষন্নতার কালো মেঘ,প্রতিহিংসার হিংস্র ছোবল আর বাতাসে বারুদের গন্ধ।

আপনার রেটিং: None

Rate This

আপনার রেটিং: None