'আবদুল হক' -এর ব্লগ

তোমরা যারা লীগ করো

তোমরা যারা লীগ কর— 

রাজনীতি থাক, সবার আগে 

কাজনীতিটা ঠিক কর। 

দেশ গড়ে তো শেষ করেছ 

যশ পেয়েছ চোর বলে, 

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 4 (টি রেটিং)

রামু সহিংসতা : সাম্প্রদায়িক না রাজনৈতিক

সম্প্রতি কক্সবাজারের রামু এবং চট্টগ্রামের পটিয়া ও এর পার্শ্ববর্তী অন্যান্য এলাকায় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর সঙ্ঘটিত নাশকতার ঘটনা দেশ জুড়ে দুঃখ ও শঙ্কা ছড়িয়ে দিয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন এটা ‘পরিকল্পিত’। হতে পারে। প্রশ্ন হলো কার পরিকল্পনা, কী পরিকল্পনা? সেই ব্যাখ্যা দিয়েছেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী। বলেছেন, এ তাণ্ডবের লক্ষ্য যুদ্ধাপরাধের বিচার বানচাল করা। শুনে আমরা হতভম্ব এবং কেউ কেউ বিনোদিত হয়েছি। মনে হচ্ছে ঘটনা পরিকল্পিত হোক আর না-হোক, মন্ত্রীর এই ‘বাণী’ যে পরিকল্পিত, তাতে সন্দেহ নেই। কেননা এটা মেনে নিলে ধরে নিতে হবে, যুদ্ধাপরাধের বিচার বানচালের মূল উদ্যোক্তা ফেইসবুকে আপত্তিকর ছবি আপলোডকারী ওই বৌদ্ধ যুবক উত্তম বড়ুয়া। সে কেন যুদ্ধাপরাধের বিচার বানচাল করতে চাইবে? তাহলে ধরা যাক সে নয়, চেয়েছে অন্য কেউ। কোনো বিরোধী দল? না। কারণ ফেইসবুকে বাজে ছবি দিয়ে আদালতের বিচার বানচাল করা যায়, এমন ছেলেমানুষি ধারণা কোনো রাজনীতিক পোষণ করবেন বলে মনে হয় না। কে তাহলে এ সাম্প্রদায়িক আক্রমণের পরিকল্পক?

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)

ভালো কাজে বাড়াবাড়ি ভালো নয়

২.
ধর্মচর্চায় চরমপন্থা যুগ যুগ ধরে কেবলই সঙ্কট, অনৈক্য ও বিপর্যয় তৈরি করে আসছে। ধর্মীয় বিশ্বাস ও আচরণের ক্ষেত্রে নিরপেক্ষ পর্যবেক্ষণ ও যুক্তি-বুদ্ধি-বিবেকের দেয়া সিদ্ধান্ত গ্রহণ না করে ব্যক্তিগত প্রবৃত্তির পছন্দের দৃষ্টিভঙ্গি ও অভিমতের অন্ধ অনুসরণ এবং গৌণ, সূক্ষ্ম ও খুঁটিনাটি বিষয়ে অনড় অবস্থান গ্রহণ, চুলচেরা বিশ্লেষণ ও বাড়াবাড়ির ফলে মুসলিমদের মধ্যে দিনদিন দল বাড়ছে, কিন্তু বল বাড়ছে না। ভুলশুদ্ধির প্রশ্ন একবার স্থগিত রেখে যদি আমরা শিয়া, খারিজী, জাহমিয়া, কাদারিয়া, জাবারিয়া প্রভৃতি সম্প্রদায়গুলির বিশ্বাসের কেবল অবস্থান ও চারিত্র নিরীক্ষণ করি, তাহলে প্রকটভাবে চোখে পড়বে তাদের চরম অবস্থা ও প্রান্তিক অবস্থান।

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)

ভালো কাজে বাড়াবাড়ি ভালো নয়


আমরা মাটির মানুষ। প্রকৃত ও রূপক, দুই অর্থেই কথাটি সত্য। মাটির পৃথিবীতে, মাটি থেকে আমাদের জন্ম, শেষ শয্যাও মাটিতেই। অনন্ত মহাকালের একটি বিন্দুতে বিজলির মতো আমাদের জীবন, ক্ষণিক। বাঁশি বাজলেই খেলা শেষ। এ সকলেই জানি। কিন্তু মনে রাখি না। মনে রাখি না বলেই অন্যকে ধাক্কা দিই। ধাক্কা দিয়ে কাউকে খাদে ফেলে দিতে পারলে ভাবি, জয়ী হলাম। ভুল। বাইরে এ জয়টা যখন পাই, তখন দেখি না যে আমাদের ভেতরের মানুষটা কী লজ্জাজনকভাবে হেরে গেলো। মানুষ দেহে প্রাণী, হৃদয়ে মানুষ। সেই হৃদয়ে আঘাত করলে মনুষ্যত্বের মৃত্যু ঘটে।

হৃদয়-মন সবারই আছে। কিন্তু সব মানুষ হৃদয়বান ও মননশীল নয়। কারণ হৃদয় থাকলেই হৃদয়বান এবং মন থাকলেই মননশীল হওয়া যায় না। হৃদয়বান হতে চাই বিকশিত হৃদয় আর মননশীল মানুষ হতে লাগে জাগ্রত মন। আত্মার জাগৃতি ও মননশীলতার উদ্বোধনের ফলে সাধারণ মানুষ পরিণত হন মহত্তম মানুষে। এ বিকাশ ও জাগৃতি, নানা কারণে, সবার ক্ষেত্রে সমানভাবে ঘটে না। এতে পরিমাণগত তারতম্য যেমন আছে, তেমনি আছে বিষয়গত বৈচিত্র। এ সবকিছু, সমস্ত ঊনতা-পূর্ণতা-তারতম্য-বৈচিত্র সমন্বিত হয়েই গড়ে উঠেছে মানুষের সমাজ।

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)

ইসলামে চিন্তার স্বাধীনতা

মানুষ কী কারণে মানুষ?

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 4 (2টি রেটিং)

মানুষের জন্যে মমতা

 ফজর আলি নবতিপর বৃদ্ধ। ছিপছিপে দেহ। পরনে সফেদ পাঞ্জাবি। আবক্ষ শাদা দাড়ি। আদ্যন্ত শাদা জীবন। কিন্তু এ জীবন তিনি আর যাপন করতে চান না। চান না সতেরো বছর ধরে। তবু বেঁচে আছেন। দীর্ঘশ্বাস আর অশ্রুর সঙ্গে বেঁচে আছেন। না, তিনি ভিখিরি নন। জীবন অবাঞ্ছিত হয়ে ওঠার কারণ দৈন্য নয়। ঢের জমিজমা আছে। পাঁচ ছেলের একজন মালয়েশিয়ায়। বাকিরাও রোজগেরে। সবাই পিতাঅন্তপ্রাণ। তবু ফজর আলি কাঁদেন। তবু চোখ তাঁর শুকোয় না। তিনি ছেলেদের ভালোবাসেন। নাতি-নাতনিদেরও। শুধু নিজের জীবনকে বাসেন না। কারণ প্রেম। কারণ বিরহ। কারণ চল্লিশ বছর আগে একজন তাঁকে ভালোবেসেছিলেন। একজন তাপস। মনফর উদ্দীন। দূরাগত। পণ্ডিত দরবেশ। তিনি তাঁকে দীক্ষা দিয়েছিলেন। ভালোবেসেছিলেন। সেই বাসা কেমন, আমরা দেখি নি। তবে তার ছায়া দেখেছি। ফজর আলির অশ্রুধারায় দেখেছি। ফজর আলির গানের সুরের আকুলতায় দেখেছি। ফজর আলির চল্লিশ বছর ধরে কলাপাতায় ভাত খাওয়ার নিষ্ঠার নেপথ্যে দেখেছি। চল্লিশ বছর আগে ধোপদুরস্ত ফজর আলিকে তাঁর পীর থালার বদলে পাতায় খেতে বলেছিলেন। সেই বলা আর রদ করে যান নি। তাই তিনি পাতায় খান। হতে পারে আদেশ তুলে নেবার

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 4 (টি রেটিং)

গীতাঞ্জলি অথবা কালের কপালে একটি নক্ষত্র

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 1 (3টি রেটিং)
Syndicate content