ইইউ ছাড়বে বৃটেন?

লন্ডন: ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত (ইইউ) প্রধান রাষ্ট্র বৃটেনকেই ইইউ থেকে সরে
দাঁড়ানোর প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন বৃটিশ
পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফিলিপ হ্যামন্ড। টেলিগ্রাফ।

ইইউ’র সমালোচক ও যুক্তরাষ্ট্রীয় ব্যবস্থার ঘোর বিরোধী জনপ্রিয় বৃটিশ
ডানপন্থী রাজনৈতিক সংগঠন ইউকিপে বৃহস্পতিবার গুরুত্বপূর্ণ ভোট অনুষ্ঠিত হয়।
ভোটে বৃটেনের রক্ষণশীলরা আসন হারানোর পরই একথা বলেন ইইউ সমালোচক হ্যামন্ড।

বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে ২৮টি সদস্য দেশ নিয়ে গঠিত ইইউ’র সদর দফতরে
২০১৭ সালে একটি গণভোটের আহ্বান জানিয়েছেন বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড
ক্যামেরন। ওই গণভোটকে সামনে রেখে বৃটেনকে বাস্তব ও অর্থপূর্ণ সংস্কারের
মাধ্যমে পুনর্গঠিত করার জন্য ক্যামেরনের প্রতিশ্রুতির কথা উল্লেখ করে
হ্যামন্ড বলেন, বৃটিশ সরকার ইইউ ত্যাগ করার জন্য প্রস্তুত।

এ সময় বৃটেনের অভিবাসনের বিষয়টি পুনর্গঠনের ওপর জোর দিয়ে হ্যামন্ড
জানান, এ বিষয়ে বাধা আসলে বৃটেন অবশ্যই ইইউ ত্যাগ করবে। বর্তমানে বিষয়টি
আলোচনার প্রথম পর্যায়ে রয়েছে এবং আলোচনা ব্যর্থ হতে পারে- এমন প্রস্তুতিও
নিয়ে রেখেছে বৃটেন, এখন ইইউ ছাড়ার প্রস্তুতিও গ্রহণ করা হবে।

_60150950_uk_mapএর
আগে খোদ বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনও বৃটেনকে ইইউ ছাড়তে হতে পারে
বলে সতর্ক করেছিলেন। একসময়ের গ্রেট বৃটেন ভেঙ্গে আরো ছোট হওয়ার আশংকায় তিনি
বলেছিলেন, সীমান্তে নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা অর্থাৎ বৃটেনের অখণ্ডতা রক্ষায়
ব্যর্থ হলে ইইউ ছাড়তে পারে বৃটেন।

প্রসঙ্গত, বর্তমানে ইংল্যান্ড, উত্তর আয়ারল্যান্ড, স্কটল্যান্ড ও ওয়েলস-
এই চারটি দেশ সম্মিলিতভাবে বৃটিশ সরকার অর্থাৎ এক সরকার ব্যবস্থায়
যুক্তরাষ্ট্রীয়ভাবে পরিচালিত হচ্ছে। গত সেপ্টেম্বরে স্কটল্যান্ডের
স্বাধীনতাকামী জনগণের দাবিতে অনুষ্ঠিত তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ এক
গণভোটে শেষ পর্যন্ত বৃটেনের অখণ্ডতা রক্ষা পায়। কিন্তু স্কটিশ ভোটারদের
মধ্যে প্রায় অর্ধেকেরই স্বাধীনতার পক্ষে অবস্থান বৃটিশ সরকারকে সে সময় এক
গুরুত্বপূর্ণ বার্তা দিয়েছিল।

নিউজনেক্সটবিডি ডটকম/এনকে/আতে

আপনার রেটিং: None

Rate This

আপনার রেটিং: None