ইমাম মাহদীর(আ.) প্রতীক্ষাকারীরা ওয়াদা পালন করে

একটি সমাজের উন্নতির প্রধান বিষয় হচ্ছে সমাজের সবার মাঝে বিশ্বাস থাকবে। আর এমন সমাজের সবাই নিজেদের প্রতিশ্রুত রক্ষা ও পালন করে।


বার্তা সংস্থা ইকনা'র রিপোর্ট: সূরা মায়েদার প্রথম আয়াতে বলা হয়েছে-


يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آَمَنُوا
أَوْفُوا بِالْعُقُودِ أُحِلَّتْ لَكُمْ بَهِيمَةُ الْأَنْعَامِ إِلَّا مَا
يُتْلَى عَلَيْكُمْ غَيْرَ مُحِلِّي الصَّيْدِ وَأَنْتُمْ حُرُمٌ إِنَّ
اللَّهَ يَحْكُمُ مَا يُرِيدُ

হে বিশ্বাসিগণ! চুক্তিসমূহ রক্ষা কর; তোমাদের জন্য চতুষ্পদ গবাদি
পশুসমূহ বৈধ করা হল সেগুলো ছাড়া যা (বিধান) তোমাদের পাঠ করে শোনানো হচ্ছে,
তবে তোমরা ইহ্রাম অবস্থায় শিকার করাকে বৈধ জ্ঞান কর না; নিশ্চয় আল্লাহ যা
ইচ্ছা বিধান দান করেন।


সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে নির্দেশ এ আয়াতের প্রথমেই দেয়া হয়েছে তা
হলো, চুক্তি বা অঙ্গীকারগুলো মেনে চলা। এখানে অঙ্গীকার বা চুক্তি বলতে
পারিবারিক, সামাজিক, অর্থনৈতিক, ধর্মীয় বা সাংস্কৃতিক চুক্তিসহ সব ধরনের
চুক্তি ও অঙ্গীকারকে বোঝানো হয়েছে, তা সেসব চুক্তি লিখিত বা মৌখিক কিংবা
চুক্তির পক্ষগুলো দুর্বল বা শক্তিশালী অথবা শত্রু-মিত্র যাই হোক না কেন।

ইসলামের অন্যান্য সূত্রের বিধান অনুযায়ী মুশরিক ও পাপীদের সাথেও চুক্তি রক্ষা করা জরুরি যতক্ষণ না তারা নিজেরাই চুক্তি লঙ্ঘন করে।

একজন মুসলমানের উচিত যে কোনো পক্ষ, ব্যক্তি বা দলের সঙ্গে কৃত ওয়াদা বা
চুক্তি রক্ষা করা। এ বিষয়টি আল্লাহর প্রতি মানুষের ঈমানের অন্যতম শর্ত।

iqna

 

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 1 (টি রেটিং)

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 1 (টি রেটিং)