সত্য বলা, চলা ও প্রচারই হোক বিসর্গের ভাষা...

আশ্রয়কেন্দ্রে ব্যতিক্রমী কর্মব্যস্ততা

 

আপনার রেটিং: None

আশ্রয়কেন্দ্রে ব্যতিক্রমী কর্মব্যস্ততা

বন্যায় ডুবেছে গ্রাম, গ্রামের বাসিন্দারা আশ্রয় নিয়েছেন আশ্রয়কেন্দ্রে।
তবুও জীবন থেমে নেই। তাঁরা নেইবসে,
কারও সাহায্যের আশায়। আশ্রয়কেন্দ্রে বসেই তাঁরা বাঁশ দিয়ে বিভিন্ন জিনিসপত্র
তৈরি করে দুবেলাপেটভরে খাবার খাচ্ছেন। ব্যতিক্রমী এই দৃশ্য রংপুরের তারাগঞ্জ উপজেলার ঘনিরামপুর বড়গোলা উচ্চবিদ্যালয়

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)

চাই প্রত্যাশিত বাংলাদেশ

 

 

আপনার রেটিং: None

রিজার্ভ ফের ৩৩ বিলিয়ন ডলার

অর্থবছরের শুরুতে রেমিটেন্স ও রপ্তানি বৃদ্ধিতে
ভর করে ১৭ বছরের মাথায় বাংলাদেশ ব্যাংকের বিদেশি মুদ্রার ভাণ্ডার ফের তিন হাজার
৩০০ কোটি (৩৩ বিলিয়ন) ডলার ছাড়িয়েছে। চলতি ২০১৭-১৮ অর্থবছরের প্রথম মাস জুলাইয়ে
রেমিটেন্স ১১ শতাংশ বেড়েছে। গত অর্থবছরে রপ্তানি আয়ে কম প্রবৃদ্ধি হলেও (১.১৬
শতাংশ) জুলাই মাসে প্রবৃদ্ধি হয়েছে ২৬ শতাংশের বেশি। গত কয়েক বছর ধরে
ধারাবাহিকভাবে বাড়ছে রিজার্ভ। গত বছরের ১ সেপ্টেম্বর অর্থনীতির অন্যতম প্রধান এই
সূচক ৩১ বিলিয়ন ডলার ছাড়ায়। ৪ নভেম্বর ছাড়ায় ৩২ বিলিয়ন ডলার। গত ২২ জুন অতীতের সব
রেকর্ড ছাপিয়ে রিজার্ভ ৩৩ বিলিয়ন ডলার অতিক্রম করে। নতুন অর্থবছরে রেমিটেন্স ও
রপ্তানি আয় বাড়ার কারণেই বাড়ছে রিজার্ভ।

আপনার রেটিং: None

হজ্ব বিষয়ক ভুল-ভ্রান্তি -মাওলানা মুহাম্মাদ ইয়াহইয়া

হজ্বই একমাত্র ইবাদত, যার নিয়ত করার সময়ই আল্লাহ তাআলার নিকট সহজতা ও কবুলের দুআ করা হয়। অন্যান্য ইবাদত থেকে হজ্বের আমলটি যে কঠিন তা এ থেকেই স্পষ্ট। হজ্বের সঠিক মাসআলার জ্ঞান যেমন জরুরি, তেমনি তা আদায়ের কৌশল এবং পূর্ব অভিজ্ঞতার আলোকে করণীয় বিষয়গুলোর প্রতি পূর্ণ খেয়াল রাখাও জরুরি। হজ্বে যে সকল ভুল হতে দেখা যায় তা সাধারণত উদাসীনতার কারণেই হয়ে থাকে। তাই নিম্নে সচরাচর ঘটে থাকে এমন কিছু ভুল উল্লেখ করা হচ্ছে। যেন হাজ্বীগণ এ সকল ভুল-ভ্রান্তি- থেকে বেঁচে সুষ্ঠুরূপে হজ্ব আদায়ে সক্ষম হন। আল্লাহ তাআলা তাওফীক দান করুন।

ইহরামের দুই রাকাত নামাযের জন্য ইহরাম বিলম্বিত করা

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 4 (টি রেটিং)

মনপুরায় স্বাস্থ্য সেবায় নৌ এ্যাম্বুলেন্স

 

 

আপনার রেটিং: None

হক ফেরকা বনাম বাতিল ফেরকা

মুসলিম সমাজে একটি হাদীস প্রচলিত আছে, "মুসলিম উম্মত ৭৩টি দলে বিভক্ত হবে, যার মধ্যে একটি মাত্র দল জান্নাতী, আর বাদবাকি সবাই জাহান্নামী।" হাদীসটি কতটা সহীহ, আমি জানি না। তবে এ হাদীসটির দোহাই দিয়ে প্রত্যেকটা দল বা মাজহাবই নিজের দলকেই একমাত্র হক ফেরকা বলে প্রচার করছে, আর বাদবাকি সবাইকে একবাক্যে বাতিল ও বিপথগামী সাব্যস্ত করছে। হাস্যকর এই অসুস্থ প্রবণতাটি বিশেষ করে দুইটি দলের মধ্যে সবচাইতে বেশি পরিলক্ষিত হয়। এই দু'দলের মাঝে আবার সাপে নেউলে সম্পর্ক। একটি দলের কাছে অপর দলটি নির্ঘাত কাফের ও সকল ফেতনার মূল।
প্রথম দলটিকে বলি, যদি তোমার ফেরকাটাই একমাত্র সহীহ ফেরকা হয়ে থাকে, তাহলে—

  • তোমার ফেরকার অনুসারীরা জগতের সবচেয়ে ধিকৃত ব্যক্তি ইয়াজিদের গুণকীর্তন করে কেন? কেন তারা নবী দৌহিত্র ইমাম হোসাইন (রা.)-এর দোষ অন্বেষণ করে বেড়ায়? যে ফেরকাটি একমাত্র সত্য ফেরকা হবে, তারা অবশ্যই সব দিক দিয়ে সত্যবাদী হবে, এটাই তো হবার কথা! কিন্তু কারবালার ঘটনার বেলায় তারা জেনেশুনে মিথ্যাচার ও ধান্ধাবাজির পরিচয় দেয় কেন?
আপনার রেটিং: None

বেহাল দশা

 

আপনার রেটিং: None

দেশেই তৈরি হচ্ছে যাত্রীবাহী রেল কোচ

 

আপনার রেটিং: None

কোরবানির চাহিদা মেটাবে ৪৫ লাখ দেশীয় পশু

২০১৬ সালে দেশে কোরবানিযোগ্য গরু-মহিষের সংখ্যা
ছিল ৪৪ লাখ ২০ হাজার। আর ছাগল-ভেড়ার চাহিদা ছিল ৭০ লাখ ৫০ হাজার। এ চাহিদার শতভাগ
মেটানো হয়েছিল দেশীয় পশুর মাধ্যমেই। এ বছরও ৪৪ থেকে ৪৫ লাখ পশু কোরবানি হওয়ার
সম্ভাবনা রয়েছে। দেশের কৃষকদের খামারে পালিত পশু দিয়েই এই চাহিদা মেটানো সম্ভব।
কারণ এ বছরও ক্ষুদ্র এবং মাঝারি খামারিদের কাছ থেকে পাওয়া যাবে ৩০ থেকে ৩২ লাখ
গরু। আর গৃহস্থের ঘরে পালিত গরু ও মহিষ পাওয়া যাবে ১০ থেকে ১৪ লাখ। আর ছাগল ও ভেড়া
তো আছেই। গত বছর কোরবানিতে দেশে পশু সংকট হয়নি। আর এবারও হবে না। সরকারের পক্ষ
থেকে খামারিদের ব্যাংক ঋণের সুবিধাসহ নানান সহায়তা দেওয়া হচ্ছে। কাজেই খামারিরা
কোরবানির অপেক্ষায় রয়েছে। গত বছরের মতোই কৃষকের ঘরে ও খামারে পালিত দেশীয় গরু-ছাগল

আপনার রেটিং: None
Syndicate content